৮৪ হাজার শূন্যপদে নিয়োগ কেন্দ্রর, অবশেষে প্রকাশিত হলো সেই নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি

দেশে লাফিয়ে বাড়ছে বেকারত্ব। এই নিয়ে চূড়ান্ত অস্বস্তিতে কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদির সরকার। কেননা, ২০১৪-র নির্বাচনের আগে বছরে ২ কোটি চাকরি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিলে তা রাখতে পারেননি মোদি। উল্টে বেড়েছে বেকারত্ব। এই নিয়ে প্রবল সমালোচনার মুখে পড়েছে কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদি সরকার। আর এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রের ৭ লক্ষ শূন্যপদে কর্মী নিয়োগের পথে হাঁটতে চলেছে কেন্দ্র। নিয়োগের জন্য বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে বলে সূত্রের খবর। একই সঙ্গে কেন্দ্রীয় আধা সামরিক বাহিনীতে প্রায় ৮৪ হাজার শূন্যপদে নিয়োগ দ্রুত করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক সূত্রে খবর, এক বছরে ধাপে ধাপে এই শূন্যপদে প্রক্রিয়া শুরু হবে। সেন্ট্রাল ইন্ডাস্ট্রিয়াল সিকিউরিটি ফোর্স বা সিআইএসএফে কনস্টেবল ও সাব-ইন্সপেক্টর পদে নিয়োগ করা হবে বলে খবর। প্রথম ধাপে সেনা বাহিনীতে ২ হাজার শূন্যপদে নিয়োগ হতে চলেছে। আগামী এক বছরের মধ্যে সিআরপিএফ, বিএসএফ, এসএসবি, আইটিবিপির একাধিক শূন্যপদে নিয়োগ হবে বলে খবর। গতবছর লোকসভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফে জানিয়েছিল, ৯ লক্ষ ৯৯ হাজার শূন্যপদ রয়েছে আধাসেনায়। সেই শূন্যপদ পূরণের প্রক্রিয়া শুরু হতে চলছে এসএসসির মাধ্যমে। ২০২০-২০২১ অর্থবর্ষে সাব ইন্সপেক্টর ও কনস্টেবল নিয়োগ করা হবে।

জানা গিয়েছে, এই মুহূর্তে কেন্দ্র সরকারের মোট শূন্যপদের সংখ্যা রয়েছে ৭ লক্ষ। গ্রুপ সি পদে ৫ লক্ষ ৭৫ হাজার শূন্য পদ রয়েছে বলে সূত্রের খবর। গ্রুপ ডি পদে শূন্যপদ রয়েছে কমপক্ষে ৯০ হাজার। গ্রুপে এ পদে শূন্য পদ রয়েছে কুড়ি হাজার। কেন্দ্রের বিভিন্ন বিভাগের শূন্যপদ তৈরি হয়েছে সাত লক্ষ। এই ৭ লক্ষ শূন্যপদে দ্রুত নিয়োগের কথা বলা হয়েছে কেন্দ্রের তরফে। গত ২১ জানুয়ারি বিভিন্ন দপ্তরের প্রধান কে চিঠি পাঠিয়ে ৭ লক্ষ শূন্যপদে নিয়োগের জন্য নির্দেশ পাঠানো হয়েছে বলে সূত্রের খবর।

ডিওপিডির তরফে বিভিন্ন দপ্তরে চিঠি পাঠিয়ে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সাত লক্ষ শূন্যপদে দ্রুত নিয়োগ করতে হবে। কোন দপ্তরে কত শূন্যপদ রয়েছে, তার পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে বলে সূত্রের খবর। মনে করা হচ্ছে বাজেটে এই সংক্রান্ত বরাদ্দ সংক্রান্ত সুখবর দিতে পারে কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদি সরকার।

এর আগে গত বছর ১১ নভেম্বর রাজ্যসভায় কেন্দ্রের তরফে জানানো হয়, চলতি অর্থবর্ষে ১ লক্ষ ০৫ হাজার ৩৩৮টি পূর্ণপদে কর্মীনিয়োগ করবে স্টাফ সিলেকশন। দ্রুত এই মর্মে প্রকাশিত হবে বিজ্ঞপ্তি। রাজ্যসভায় তথ্য তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী জিতেন্দ্র সিং জানিয়েছিলেন, গত বছর ২০১৮ সালের ১ মার্চের তথ্য অনুযায়ী ৬ লক্ষ ৮৩ হাজার ৮২৩ শূন্যপদ তৈরি হয়েছে। গ্রুপ সি পদ শূন্য আসন রয়েছে ৫ লক্ষ ৭৪ হাজার ২৮৯টি। গ্রুপ বি পদে শূন্যপদ রয়েছে ৮৯ হাজার ৬৩৮টি। গ্রুপ এ পদে রয়েছে ১৯ হাজার ৮৯৬টি শূন্যপদ। ধাপে ধাপে এই শূন্যপদে নিয়োগ করা হবে বলেও জানানো হয়েছে।

শূন্যপদ প্রকাশের পাশাপাশি কত আসনে নিয়োগ করা হয়েছে, তার তথ্যও তুলে ধরা হয়। কেন্দ্রের তরফে জানানো হয়েছে, গত অর্থবর্ষে রেল রিক্রুটমেন্ট বোর্ড ১ লক্ষ ২৭ হাদার ৫৭৩টি শূন্যপদে কর্মী নিয়েছে করেছে। গ্রুপ এ ও সি মিলিয়ে মোট ১ লক্ষ ৫৬ হাজার ১৩৮টি শূন্যপদে নিয়োগ করা হয়েছে। ডাক বিভাগে ১৯ হাজার ৫২২টি শূন্যপদে নিয়োগের কাজ চলছে। সব মিলিয়ে ৪ লক্ষ ৮ হাজার ৫৯১টি শূন্যপদে নিয়োগ করা হয়েছে। জানানো হয়েছে, স্টাফ সিলেকশনের মাধ্যমে ১ লক্ষ, রেল রিক্রুটমেন্ট বোর্ডের মাধ্যমে ১ লক্ষ ২৭ হাজার, গ্রুপ এ, সি মিলিয়ে ১ লক্ষ ৫৬ হাজার শূন্যপদে নিয়োগ করা হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button