জাগল পুরনো প্রেম! হবু বরের বাবার সঙ্গে পালালেন কনের মা

কাটারগ্রাম এলাকা থেকে লোকটি ‘অদৃশ্য’ হয়ে যাওয়ার সময় থেকেই পাওয়া যাচ্ছে না কনের মাকে। তাঁরা পালিয়েছেন বলে সন্দেহ করে অস্বস্তিকর পরিস্থিতির মধ্যে পড়েছে দুটি পরিবার। দু পক্ষই নিখোঁজ ডায়েরি করেছে।

হাম আপকে হ্যায় কৌন’ ফিল্মে হবু বর মণীশ বেহলের কাকা অলোক নাথ ও হবু কনে রেণুকা সাহানির মা রীমা লাগুর কলেজের প্রেম রীমার স্বামী অনুপম খের-সহ সবার সামনে চলে আসায় তাঁরা সবার মাঝে অস্বস্তিতে পড়েছিলেন। তবে তাতে ক্ষতি কিছু হয়নি। হাসি, ঠাট্টা, খুনসুটিতেই সীমাবদ্ধ থাকে পুরনো প্রেম। শান্তিপূর্ণভাবে বিয়ে হয় মণীশ ও রেণুকার। কিন্তু রিয়েল লাইফে উলটো কাণ্ড ঘটল গুজরাটে।

সুরাটের যুগলের বিয়েই ভেঙে গেল তাঁদের বাবা-মায়ের পুরনো প্রেম জাগ্রত হওয়ায়। বিয়ের আগেই কনের মাকে নিয়ে পালালেন বরের বাবা। ফ্রেব্রুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহে বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। তবে গত ১০ দিন ধরে কোনও খোঁজ নেই ৪৮ বছরের লোকটির এবং ৪৬ বছরের মহিলার। কাটারগ্রাম এলাকা থেকে লোকটি ‘অদৃশ্য’ হয়ে যাওয়ার সময় থেকেই পাওয়া যাচ্ছে না কনের মাকে। তাঁরা পালিয়েছেন বলে সন্দেহ করে অস্বস্তিকর পরিস্থিতির মধ্যে পড়েছে দুটি পরিবার। দু পক্ষই নিখোঁজ ডায়েরি করেছে।

বাগদানের পর গত এক বছর ধরে বিয়ের প্রস্তুতি চালাচ্ছিলেন হবু বর ও কনে। পরিবারের সবার সম্মিতেই এই বিয়ে হচ্ছিল। ১০ জানুয়ারি থেকে খোঁজ মিলছে না বরের বাবা রাকেশের (নাম পরিবর্তিত)। তিনি একজন বস্ত্র ব্যবসায়ী। কনের মা স্বাতী (নাম পরিবর্তিত)-কে অল্প বয়স থেকেই চিনতেন রাকেশ। তাঁরা একই এলাকায় থাকতেন এবং খুব ভালো বন্ধু ছিলেন বলে জানা গিয়েছে।

তাঁদের এক আত্মীয় জানিয়েছেন, ‘তাঁরা একই জায়গায় থাকতেন। তখন থেকেই দুজনকে চিনতেন। তাঁরা পালানোর পর কয়েকজন বন্ধু জানিয়েছেন, তাঁদের আগে সম্পর্কও ছিল। তবে স্বাতীর সঙ্গে তাঁর বর্তমান স্বামীর বিয়ে হয়ে যায়।’

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button